নারী কি আজ “অভ্যস্ত”?

বাংলাদেশের সামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় আনলে আজ এটা বলতেই হয়…..এ সমাজ নারীকে অভ্যস্ত হওয়া শেখাচ্ছে।কোন বিষয়ে?ব্যাখ্যা করছি।

আজ রাস্তা থেকে কোনো মেয়ে হেঁটে গেলে,তার দিকে কোনো বাজে স্বভাবের পুরুষ খারাপ দৃষ্টিতে তাকাবে না-এ হতেই পারে না।পেছন থেকে হয়ত কেউ অকথ্য ভাষায় কিছু বলে উঠবে,ওড়নায় মুখ পেঁচিয়ে মেয়েটাকে চুপচাপ দৌড়ে পালাতে হবে।বাসায় আজকে দূর সম্পর্কের মামা চাচারা আসছেন অনেকদিন পর,কি খুশি মেয়েটা!কিন্ত রাতের বেলা তাকে বিছানায় শুয়ে এটা ভেবে কাঁদতে হবে হয়ত-মামা আমার গায়ে হাত দিয়ে দুষ্টুমি করল কেন?

“মা,রাস্তায় মানুষজন এভাবে তাকাবেই।তাতে কি?তুমি চুপ করে চলে যাবে শুধু ওখান থেকে।””মা,বাজে ছেলেরা এমন বাজে কথা বলবেই, রাস্তায় বসে চিৎকার চেঁচামেচি না করাই ভালো,ওদেরকে ওদের মত থাকতে দাও।”” কি বলো এসব?মামা গায়ে এভাবে হাত দিয়েছে মানে?মামাই তো!বোকা মেয়ে একটা!মজা করে করেছে হয়ত!ওভাবে নিচ্ছিস কেনো!?” এসব কথা শুনিয়ে নারীদের আজ এই পরিস্থিতির সাথে অভ্যস্ত করা হচ্ছে।আর এসব কথা শুনতে শুনতেও তারা আজ অভ্যস্ত। এই বিষয়টা খুব অদ্ভুত তাই না?আমাদের সমাজে পুরুষকে এসব বিষয়ে শিক্ষা দেওয়ার পরিবর্তে নারীকে এসব পরিস্থিতির সাথে মানিয়ে নিতে বলা হচ্ছে।আলাদা ভাবে বলার কিছুই নেই,নারীরা আজ ক্লান্ত,তারা নিরূপায়।তাদের প্রতিবাদ করার শক্তিও কেড়ে নেওয়া হচ্ছে।তাদের চুপ করে থাকা শেখানো হচ্ছে।প্রত্যেক নারীর ই ইচ্ছা হয়,না, এ অন্যায় আমি মেনে নিতে পারব না।আমি প্রতিবাদ করবোই।করেও সে।কিন্ত তারপর?তারপর তাকে এমন ভাবে অনুতপ্ত করানো হয় যে, সেই বেচারা আর জীবনে প্রতিবাদ করার সাহসটুকু পায় না।

” বাসে মেয়েদের স্যান্ডউইচ লাইফ” নামে তো একবার পত্রিকায় একটা শিরোনামই উঠল!বাসে উঠলেই বেশি ভীড়ের ফায়দা তুলে কোনো লোক হয় তার হাতের উপর হাত তুলে দিচ্ছে,নয়ত গা ঘেঁষে বসছে,নাহলে তার দিকে হেলে পড়ছে।তাকে কিছু বলে উঠলে,সে সবার সামনেই মেয়েটাকে হেনস্তা করে বলে উঠছে,”এত ভীড়ে গায়ে একটু তো ধাক্কা লাগতেই পারে,এখন আপনার জন্য কি আমি রয়্যাল বাস আনাবো?”। তখন মেয়েটাকে বাধ্য হয়ে সেসব অত্যাচার মেনে নিতে হয় মুখ বুজে।

এসব উদাহরণ,এসব কথা বলার উপসংহার একটাই- এইসব ঘটনা নারীকে দৈনন্দিন জীবনের একটা অংশ হিসেবেই মেনে নিতে হচ্ছে।তারা প্রতিবাদ করতে গেলেই তাদেরকে এমনভাবে বোঝানো হচ্ছে যে,দিনশেষে সেই নারী নিজেকেই দোষী ভেবে আফসোস করে বলছে-“হায়!এ আমি কি করলাম!”

    2 thoughts on “নারী কি আজ “অভ্যস্ত”?”

    Leave a Comment

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    Scroll to Top