Communication Skill By Jahid Hasan Joni

যোগাযোগ দক্ষতা(𝐂𝐨𝐦𝐦𝐮𝐧𝐢𝐜𝐚𝐭𝐢𝐨𝐧 𝐒𝐤𝐢𝐥𝐥)

🔘ইদানিং আমাদের নিত্যকাজে “যোগাযোগ দক্ষতা” যেন লেগেই আছে।
যে কাজেই আপনি নিজেকে যুক্ত করুন না কেন, এ বিষয়ে দক্ষ আপনাকে হতেই হবে।আর এ জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হলো ছাত্রজীবন।আপনি যা বলছেন, তা আরেকজন বুঝতে পারছে কি না, কিংবা আপনি অন্যের কথা বুঝতে পারছেন কি না—এ-দুটি ধারণার সমষ্টিই কিন্তু যোগাযোগ দক্ষতা।
বিষয়টা এরকম:-
➤“Communication is a skill that you can learn. It’s like riding a bicycle or typing. If you’re willing to work at it, you can rapidly improve the quality of every part of your life.”—𝐁𝐫𝐚𝐢𝐧 𝐓𝐫𝐚𝐜𝐲

পৃথিবীতে সবচেয়ে কঠিন কাজগুলোর একটি হলো ‘কমিউনিকেশন’ বা ‘যোগাযোগ’।না না,ভয় পাওয়ার কিছু নেই!
কিছু বিষয় মানতে পারলেই “যোগাযোগ” দক্ষতাই আবার আপনার কাছে একটা সহজ বিষয় হয়ে যাবে! তাহলে, আমরা শুরু করি আমাদের যোগাযোগ দক্ষতাটা নিয়ে একটু জানার।

আমরা হয়ত বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অন্যের সাথে কথা বলাটাকেই আমাদের যোগাযোগ দক্ষতা হিসেবে বিবেচনা করি,কিন্তু মূলত ব্যাপারটা এমন না!এর সাথে লিখিত, মৌখিক আবার অনেক সময় সাংকেতিক ব্যাপারটাও জড়িত।এসব মিলে আমাদের দারুণ একটা যোগাযোগ দক্ষতা-ই কিন্তু মানুষের মাঝে আমাদের গ্রহণযোগ্যতাটাকে বাড়িয়ে তোলে।

নিজের ভুল হলে তা স্বীকার করুন সঙ্গে সঙ্গে। ভুল শুধরে নিয়ে সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন। এটি অন্যের নিকট আপনার গ্রহণযোগ্যতা বাড়াবে।

নিজে কথা বলবেন অবশ্যই, তবে তার আগে মনোযোগ দিয়ে কথা শোনার অভ্যাস করুন। কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনার সময় তা গুরুত্বের সঙ্গে শুনুন। প্রসঙ্গের বাইরে কথা বলতে যাবেন না। মনে রাখবেন একজন মনোযোগী শ্রোতা খুব সহজেই অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারে। কথা শোনা শেষ হলে আপনার বক্তব্য গুছিয়ে বলুন। নিজের ইতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করুন। তবে নিজের বক্তব্য প্রতিষ্ঠা করার জন্য কখনো জোর খাটাতে যাবেন না। আপনার বক্তব্যের পক্ষে জোরালো যুক্তিগুলো তুলে ধরুন সুন্দর করে। সবসময় কথা বলবেন আত্নবিশ্বাসের সঙ্গে। তবে আচরণে অহংকার বা জেদ যেন প্রকাশ না পায় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন।
সুযোগ কাজে লাগান
কথা বলা, লেখা বা নিজের ভাবনা উপস্থাপনের ক্ষেত্রে আপনি যদি খুব আত্মবিশ্বাসী না-ও হন, তবু এসবের কোনো সুযোগ হাতছাড়া করবেন না। বিতর্ক, বিজনেস কেস কম্পিটিশন, রচনা প্রতিযোগিতা, বক্তৃতা—এসব থেকে নিজেকে দূরে রাখবেন না। বিভিন্ন ধরনের, বিভিন্ন পেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলুন। চর্চা করা শিখতে হবে!
যোগাযোগ–দক্ষতা প্রতিদিন চর্চার মাধ্যমে বিকশিত হয়। তাই চর্চার দিকে আরও মনোযোগ দিতে হবে। সাধারণ একটি ই–মেইল লেখা থেকে শুরু করে বক্তৃতা দেওয়া—প্রত্যেক ক্ষেত্রে নিজের স্বকীয়তা রাখতে হবে। আপনি হয়তো বন্ধুকে ই–মেইল পাঠাচ্ছেন, আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে কথা বলছেন, এসব ক্ষেত্রেও দক্ষ যোগাযোগের চর্চা করুন।

𝐌𝐝. 𝐉𝐚𝐡𝐢𝐝 𝐡𝐚𝐬𝐚𝐧 𝐉𝐨𝐧𝐢
𝐔𝐥𝐢𝐩𝐮𝐫 𝐌.𝐒 𝐬𝐜𝐡𝐨𝐨𝐥 𝐚𝐧𝐝 𝐜𝐨𝐥𝐥𝐞𝐠𝐞.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top