পান স্বাস্থ্যের জন্য কী উপকারী নাকি ক্ষতিকর?

পান হচ্ছে মুখরোচক খাবার। পানের সাথে আমরা কম বেশি পরিচিত। আমরা দাদা-দাদী, নানা-নানি এবং পরিবারের বড়কে পান খেতে দেখেছি। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে খাবার হচ্ছে পান। আমরা ঢাকা শহরের মধ্য বয়সীদের দেখি চুন, সুপারি, জর্দা, খয়ের ইত্যাদি সাথে মিশিয়ে পান খাই। পানের ইংরেজী শব্দ হলো Betel Leaf। যদি Leaf বাদ তখন সেটা ভিন্ন অর্থ প্রকাশ পাবে। অর্থাৎ শুধু Betel লিখলে সেটার বাংলা অর্থ হবে সুপারি। পানের বৈজ্ঞানিক নাম হচ্ছে Piper betle। যুবকদের বিশেষ করে গ্রামের যুবকদের কাছে পান খুব প্রিয়। আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম পান খুবই পছন্দ করতেন। তবে অনেক মানুষের মতে পান খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। আবার, অনেক মানুষের মতে পান খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ। এসব মানুষকে জানোর জন্য আজ আমার লেখা।

পান বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অর্থকারী ফসল। তাই পান আমাদের সংস্কৃতির সাথে ওতপ্রতভাবে জড়িত। পান স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী বিশেষ করে পাকস্থলীর জন্য। কৃষি তথ্য সার্ভিসের মতে, পান খেলে লালাগ্রন্থি নিঃসরণ বেড়ে যায়। এই লালার কারণেই হজমের প্রথম ধাপের কাজ শুরু হয়। লালার মধ্যে থাকা বিভিন্ন এনজাইম বা উৎসেচক খাদ্যকে কণায় ভাঙ্গতে সাহায্য করে। আবার পান খেলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। খাওয়ার পর মুখের ভেতরে দাঁতের ফাঁকে খাবার দানা লেগে থাকে। ফলে ব্যাকটেরিয়া ঐ খাবারগুলোকে পচিয়ে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। তাই খাওয়ার পর পান খেলে পানের রস জীবাণুনাশক হিসেবে কাজ করে এবং ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে না। ফলে দুর্গন্ধ দূর হয়। পান খেলে যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এই ছাড়াও আরো উপকারিতা আছে। যেমনঃ চর্মরোগ সারায়, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় ইত্যাদি।

পানের যেমন উপকারিতা তেমন অপকারিতা আছে। খালি পেটে পান খেলে পেট ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে। তাই খালি পেটে পান খাওয়া ঠিক হবে না। পানের সাথে বেশি করে চুন মিশিয়ে দাঁতের জন্য ক্ষতি হতে পারে। পানের সাথে জর্দা মিশিয়ে একবারে উচিত নয়। জর্দা হচ্ছে তামাকজাত পণ্য। এটি সাধারণত সিগারেটে থাকে। যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। ফুসফুস শ্বাস-প্রশ্বাসে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। আবার পানের গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়। বেশি পান খেলে স্বাস্থ্যের মারাত্নক ক্ষতি হতে পারে। শিশু এবং গর্ভবতী মহিলাদের পান খাওয়া নিষেধ।

আমিও পান খাই, তবে মাসে কিংবা সপ্তাহে একবার পান খাই। আমার কাছে তেমন খারাপ কিছু মনে হয় না। তবে একটি সত্য কথা বলতে চাই। সেটা হলো সব জিনিসের একটি সীমা আছে। তাই আমরা কিছু সতর্কতা অবলম্বন করি তাহলে আমাদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হবে না। ফলে আমরা পান খেতে পারব।

নামঃ মুসাব্বির উদ্দিন।

শিক্ষার্থী

ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ, ঢাকা।      

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top