আজব যত খেলা

পৃথিবীর একেক দেশে একেক রকম সংস্কৃতির চর্চা হয়ে থাকে। যার কারণে আমাদের খেলা, উৎসব, জীবনধারার ক্ষেত্রেও এর ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়।  ঠিক এমন কয়েকটি খেলা সম্পর্কে আমরা জানবো এখন। এমন কয়েকটি আজব ধরণের খেলাগুলো হলো-

পুল চিকেন ফাইট:

এটি একটি আনুষ্ঠানিক খেলা যা সুইমিং পুল, লেক এ হয়ে থাকে। এ খেলার  সঙ্গীর কাঁধে বসে বিপক্ষ দলের প্রতিযোগীকে তার সঙ্গীদের কাছে থেকে আলাদা করার চেষ্টা করে হাত ব্যবহার না করে।  এটি জাপানে ” কিবাসেন “, ব্রাজিলে ”  ব্রিগাদে গ্যালো ” আর মেক্সিকোতে ” ক্যামেল ফাইটিং ” নামে পরিচিত।

রানিং অফ দ্যা বুলস :

জুলাইয়ের ৭ থেকে ১৪ তারিখ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল আটটায় শত শত মানুষ স্পেনের পামপ্লোনাতে জড়ো হয়। এরপর তাদের পিছে ১৫-২০ টি ষাঁড় ছেড়ে দেওয়া হয়। এভাবে প্রায় ১ কিলোমিটার দৌঁড়াতে হয়। এতে অনেক মানুষ প্রতিবছর গুরুতর আহত হয়, এমনকি মারাও যাই।

সেপাক টাকরো :

এটি ভলিবলের মতো দক্ষিণ এশিয়ার জনপ্রিয় খেলা। এই খেলায় হাতের পরিবর্তে পা,মাথা, বুক  ও হাঁটু ব্যবহার করা হয়। এই খেলার বল হয়  নরম কাঠ দিয়ে। আন্তর্জাতিক সেপাক টাকরো ফেডারেশনের সেপাক টাকরো প্রতিযোগিতায় একশো এর উপর দেশ অংশগ্রহণ করে।

আঙুলের যুদ্ধ:

১৯৭০ সালে ব্রিটেনের ওয়েটনে প্রথম খেলা হয়েছিল পায়ের পাঞ্জা। এখন দেশটির ডার্বিশায়ারে অ্যাশবর্নের বেন্টলি ব্রুক ইনে প্রতিবছর এই খেলার আয়োজন করা হয়।

আন্ডার ওয়াটার সাইক্লিং:

নামটা বেশ সরল মনে হলেও এটা খেলা বেশ কঠিন। শক্তি আর সহনশীলতার দুটোই প্রয়োজন হয় এই খেলায়। এটি সুইমিং পুল এর নিচে করা হয়ে থাকে। এই খেলার কোর্স প্রায় আধা কিলোমিটার। এই খেলায় বিশেষ ধরণের সাইকেল ব্যবহৃত হয়, যার টায়ার বায়ুশূন্য। আর প্রতিযোগীদের গায়ে থাকে স্কুবা ডাইভিং এর পোশাক।

এছাড়াও এমন অনেক দেশে অনেক অদ্ভুত ও অজানা খেলা রয়েছে যেগুলা সম্পর্কে আমরা এখনো অবগত নয়।  আশা করি আপনারা সেটার ধারণা এতক্ষন এ পেয়ে গেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top