আজব যত উৎসব

সংস্কৃতি হলো সেই জটিল সামগ্রিকতা যাতে অন্তর্গত আছে জ্ঞান, বিশ্বাস, নৈতিকতা, শিল্প, আইন, আচার এবং সমাজের একজন সদস্য হিসেবে মানুষের দ্বারা অর্জিত অন্য যেকোনো সম্ভাব্য সামর্থ্য বা অভ্যাস। একেক দেশে একেক সংস্কৃতি। কোনো দেশে আলোকসজ্জা, কোনো দেশে পানিতে নেমে পূজা আবার কোথাও খাবার নিয়ে গান বা মুখোশ পরে আগুন নিয়ে খেলা।

এসব শিল্প সংস্কৃতি চর্চা মানুষকে একধরনের আত্মপ্রকাশের সুযোগ দেয় এবং শিল্পের আরেকটা ব্যবহারিক দিক আছে। তা হল মানুষকে উন্নত জীবনের দিকে নিয়ে যাওয়া। সুতরাং পৃথিবীর সব ধরণের উৎসব  কিছু না কিছু ভূমিকা রাখে আত্মপ্রকাশের বিকাশে। এমনি কয়েকটি আজব উৎসব  সম্পর্কে এখন আমরা জানবো-

১) বালিশ যুদ্ধ:

থাইল্যান্ডে বছরের একটি বিশেষ দিনে রাজপথে দলে দলে হাজির হতে থাকে থাইবাসী। তাদের সবার হাতে অস্ত্র হিসেবে থাকে বালিশ। বাঁশিতে ফুঁ দেয়ার সাথে সাথে একজন আরেকজন কে মারে বালিশ দিয়ে। কিন্তু অবাক ব্যাপার হচ্ছে, তাতে যে মার খাই সে রেগে যাওয়ার বদলে হেসে উঠে।  বর্তমানে থাইল্যান্ড ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, চীন,কোরিয়াসহ বিভিন্ন দেশে মার্চে বেশ আয়োজিত হয় বালিশযুদ্ধ।

২) লা টমাটিনা:

১৯৪৫ সাল থেকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে লা টমাটিনা।  প্রতিবছর আগস্ট এর বিশেষ দিনে পালন করা হয়। এই উৎসবে একে অপরকে টমেটো ছুড়ে মারা হয়।  স্পেনের বার্সেলোনার ছোট্ট শহর বুনোল-এ দেশ-বিদেশ থেকে হাজির হয় হাজার হাজার মানুষ এই টমেটো উৎসব বা লা টমাটিনা খেলার জন্য।

৩) কমলা উৎসব:

খাবার ছোড়ার নামকরা উৎসব “অরেঞ্জ ফেস্টিভ্যাল”। প্রতিবছর ইতালিতে প্রচুর কমলা উৎপাদন হয় বলে তারা অতিরিক্ত কমলা নষ্ট করার জন্য এ কমলা উৎসব বা “অরেঞ্জ ফেস্টিভ্যাল” পালন করে।

৪) পানি উৎসব:

অন্যের গায়ে পানি ছিটিয়ে ভিজিয়ে দেওয়ার মধ্যে অন্যরকম মজা আছে।  তাই না! এই মজার কাজ করতে থাইল্যান্ডে প্রতিবছর এপ্রিল মাসে নতুন বছর উপলক্ষে আয়োজন করা হয় পানি উৎসবের। স্থানীয় ভাষায় এর নাম “সংক্রান্ত”। বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চল ছাড়াও কয়েকটি দেশে আয়োজন করা হয় পানি উৎসব।

৫) ব্যাঙ উৎসব:

প্রতিবছর বিশ্ব শ্রম দিবসে লুইজিয়ানার রেইনের কাজুন শহরে অনুষ্ঠিত হয় এই উৎসব। ব্যতিক্রমী এই উৎসবে হাতে প্রমাণ সাইজের ব্যাঙ নিয়ে হাজির হয় অসংখ্য মানুষ। সেখানে নাচ, গানসহ হয় ব্যাঙ প্রতিযোগিতা। সবশেষে ভোজ আর তাতে অন্যান্য খাবারের সাথে থাকে ব্যাঙ ভাজা আর ব্যাঙের রোস্ট!

পৃথিবীতে অনেক দেশে এমন অনেক আজব আজব উৎসব রয়েছে যা এখনো আমাদের অজানা। আশা করি ইতিমধ্যে আপনারা একটি সংক্ষিপ্ত ধারণা পেয়ে গেছেন !!

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top