গাছের উপকারিতা

গাছ নানাভাবে মানুষের উপকার করে। ফল, ফুল, কাঠ, অক্সিজেন, ছায়া – এ সবকিছুই আমরা গাছ থেকে পাই। গাছের উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না। আর্থিক সুবিধার কথাই ধরা যাক।

ইন্ডিয়ান ফরেস্ট ইন্সটিউটের গবেষকরা ৫০ বছর বেঁচে থাকা একটি গাছের আর্থিক সুবিধা বের করেছেন। যা হল, গাছ বায়ুদূষণ থেকে পরিবেশকে রক্ষা করে ১০ লক্ষ টাকার, জীবন রক্ষাকারী অক্সিজেন দেয় ৫ লক্ষ টাকার, বৃষ্টির অনুকূল পরিবেশ তৈরি করে বাঁচায় ৫ লক্ষ টাকা, মাটির ক্ষয়রোধ ও উর্বরা শক্তি বৃদ্ধি করে বাঁচায় ৫ লক্ষ টাকা, বৃক্ষে বসবাসকারী প্রাণীদের খাদ্য ও আশ্রয় দিয়ে বাঁচায় ৫ লক্ষ টাকা, আসবাবপএ, জ্বালানি কাঠ ও ফল সরবরাহ করে ৫ লক্ষ টাকার, বিভিন্ন জীবজন্তুর খাদ্যের যোগান দিয়ে বাঁচায় আরও ৪০,০০০ টাকা।৫০ বছর বেঁচে থাকা
একটি বৃক্ষের আর্থিক সুবিধার মোট মূল্য দাঁড়ায় ৩৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

যেসব এলাকায় গাছ বেশি সেখানে বন্যা ঝড় তেমন ক্ষতি করতে পারে না।গাছপালা মায়ের আঁচলের মত মানুষকে আগলে রেখে রক্ষা করে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে।

যদি গাছ লাগিয়ে বাসা বাড়ির ছাদ গুলোকে একটুখানি সবুজ করা যায় তাহলে শহরের তাপমাত্রা কমে আসবে। ছাদের বাগান বাইরের তাপমাত্রার চেয়ে ঘরের তাপমাত্রা প্রায় ১.৭৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস কমাতে পারে। এমনটাই জানিয়েছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা। একটা সবজির গাছ তিন মাসের জন্য তিনজনের অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে।

শহরগুলোতে ফাঁকা জায়গা কম সেজন্য নতুন বাড়ির অন্তত ২৫ শতাংশ ছাদে বাগান করা উচিত। শুধু পরিবেশগত দিকই নয় ছাদবাগানে বাড়ির মালিক ভাড়াটিয়ারা আর্থিক দিক থেকে লাভবান হতে পারেন।
শখের পাশাপাশি বাণিজ্যিক দিক মাথায় রেখে অনেকেই ছাদে বাগান করে সফলতা পেয়েছেন।
আড়াই কাঠার বাড়ির ছাদে সবজি চাষ করে পরিবারের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বছরে ৫০ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।
একটি দেশের মোট ভূখন্ডের কমপক্ষে ২৬ ভাগ বনভূমি থাকা দরকার বাংলাদেশ আছে মাত্র ১৭.৫ ভাগ।

শুধুমাত্র রোহিঙ্গাদের বসবাস করতে গিয়ে চার হাজার একর জায়গার বনভূমি উজাড় হয়েছে। গাছের সংখ্যা কমে যাওয়ায় আবহাওয়া আচরণ বদলে গেছে গরমের সময় ঠাণ্ডা ঠাণ্ডার সময় গরম পরে। কৃষি উৎপাদন হ্রাস পেয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পরিবেশ প্রকৃতি বাঁচাতে গাছ লাগানোর বিকল্প নেই। স্কুল-কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গাছ লাগাতে উৎসাহিত করা যেতে পারে। বইপড়া উৎসবের মতো গাছ লাগানো উৎসব হতে পারে। স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই উৎসবের আয়োজন করতে পারে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top