কমিক্স

রঙিন মলাটের কমিকস বই কে না ভালবাসে ৷ শৈশব পেরিয়ে কৈশোর-যৌবনেও এর নেশা কাটাতে পারে না অনেকেই।কমিকস হলো এমন এক ধরনের মাধ্যম যেখানে চিত্র এবং লেখার দ্বারা কোনো ভাবনা প্রকাশ করা হয়।কমিকস প্রায়ই ধারাবাহিকভাবে কয়েকটি প্যানেল বা চিত্রের রূপে থাকে।কমিকসের বিভিন্ন রূপ হলো কমিক স্ট্রিপ, সম্পাদকীয় এবং কমিক বই।

সোয়াশ’ বছর আগে কমিকসের কথা কেউ চিন্তাও করতে পারত না। কিন্তু কমিকসের আদিরূপ কার্টুন তখন বেরিয়ে গেছে। ক্যারিকেচার-কার্টুন-কমিক স্ট্রিপ-কমিকস এই পর্ব পার হতে লেগেছে প্রায় ১০০ বছর।

কমিকস বই বা কমিকস ম্যাগাজিন প্রচলনের ইতিহাসটাও কিন্তু খুব বেশি দিন আগের নয়। একসময় শুধুমাত্র খবরের কাগজেই কোনো এক প্রাত্যহিক ঘটনা নিয়ে ব্যঙ্গচিত্রধর্মী কার্টুন পত্রিকার পাতায় শোভা পেত। ‘নিউইয়র্ক ওয়ার্ল্ড’ পত্রিকার সম্পাদক যোসেফ পুলিৎজার সংবাদপত্রের সম্পাদক হিসাবে কমিকসের তাৎপর্য ও ক্ষমতা প্রথম উপলব্ধি করেছিলেন। আরো কিছুদিন পর পত্রিকায় পাঠকের চাহিদা দেখে বিদেশের বিভিন্ন নামী পত্রিকা থেকে সিরিজ হিসেবে প্রতিদিন কমিকস প্রকাশিত হতে দেখা যায়। সেসব কমিকস ছিল মূলত সাদা-কালোয়।

এদিকে ১৮৯৫ সালে ‘নিউইয়র্ক ওয়ার্ল্ড’ পত্রিকায় প্রকাশিত রিচার্ড আউটকোল্টের সম্পাদনায় ‘The Yellow Kid’ শীর্ষক রঙিন কমিক স্ট্রিপকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত প্রথম কমিকস এবং প্রথম রঙিন কমিক স্ট্রিপ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কমিকস বই সকলের হাতে পৌঁছে দেয়ার কথা কারও মনে তখনও আসেনি। কেউ ভাবতেই পারেনি কমিকসকে বই আকারেও প্রকাশ করা যেতে পারে।

কমিক স্ট্রিপগুলিকে একসাথে জড়ো করে বই আকারে প্রকাশ করার কথা প্রথম ভাবা হয় ১৯৩০ সালের দিকে। ১৯৩৩ সালে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত কমিক স্ট্রিপগুলো নিয়ে প্রথম কমিকস বই মুদ্রিত হয়, যার নাম ছিল ‘Famous Funnies’।প্রথম দিকে এই বইগুলোতে খবরের কাগজে বের হওয়া কমিকসই ছাপানো হত। কিন্তু সে অবস্থা বেশি দিন থাকেনি। মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে কমিকস প্রকাশনা সংস্থাগুলো তাদের নিজস্ব চিত্রকাহিনী ছাপতে শুরু করে৷

বাংলা কমিকসের শুরুটাও কিন্তু খুব বেশি দিনের নয়। একসময় জনপ্রিয় ইংরেজি কমিকসগুলো বাংলায় অনুবাদ করে ছাপা হত। এর মধ্যে ‍লি ফকের লেখা ‘ফ্যান্টম’ এর অনুবাদ ‘অরণ্যদেব’ বাঙালি পাঠকদের মধ্যে জনপ্রিয়তা পায়। সে সময় বাংলা কমিকস বলতে ছিল একমাত্র প্রতুলচন্দ্র লাহিড়ির আঁকা শেয়াল পণ্ডিত, যা তখন যুগান্তরে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হত। পরবর্তীতে ময়ুখ চৌধুরীর হাত ধরে বেশ কিছু বাংলা কমিকস প্রকাশিত হয়।
সার্থক বাংলা কমিকসের স্রষ্টা হিসেবে নারায়ণ দেবনাথের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তার সৃষ্ট ‘বাঁটুল দি গ্রেট’, ‘হাঁদা ভোঁদা’, ‘নন্টে ফন্টে’ সার্থক বাংলা কমিক চরিত্র হিসেব সকল বাঙালি পাঠকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলেছে৷

কমিকসের প্রতি সব বয়সী মানুষের ভালবাসা চিরকালীন। এটি এখন আর শুধু সংবাদপত্রের পৃষ্ঠায় আবদ্ধ নয়। সাহিত্যের অংশ হিসেবে কমিকস নিয়েও হয়েছে নতুন সব আন্দোলন আর পরীক্ষা-নিরীক্ষা। রঙ-বেরঙের কমিকস সারা পৃথিবীর মানুষকে বিনোদন দিয়ে চলছে এখনও।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top