“সময়”

সময় চলমান, বহমান এক সত্য। কথায় আছে, সময় ও নদীর স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না। যার কোন বিরতি নেই, নেই কোন পিছুটান। যে সময় একবার অতিবাহিত হয়, তা আর ফিরে আসে না। তাই সময়ের চেয়ে মূল্যবান আর কিছুই নেই।

সব মানুষই একটি নির্দিষ্ট সময় নিয়ে পৃথিবীতে আসে। সেটিও মহাকালের কাছে ক্ষণিক। সময়ের কাজ সময়ে না করলে, অসময়ে কোন কিছুই আর সাধন হয় না। তাই এই সময়ের সদ্ব্যবহার না করতে পারলে পুরো জীবটাই হয়ে যায় বৃথা।

মানুষ জন্ম গ্রহণ করে, ধাপে ধাপে জীবনের সব পর্যায় অতিক্রম করে এক সময় জীবন সায়াহ্নে চলে আসে। সময়ের বদলে পরিস্থিতি বদলায়। জীবন অতিক্রম করে শৈশব, কৈশোর, যৌবন এবং শেষ ধাপে বার্ধক্য।

তবে জীবনের সব সময়ের কাজ বা দায়বদ্ধতা একরকম না। সময়ের গুরুত্ব সবচে বেশি পায় জীবনের প্রথম ধাপে। কেননা এ সময় তৈরী হয় একজন মানুষ, তার মন-মনন, বিবেক, বুদ্ধি, মনুষ্যত্ব। যার উপর ভিত্তি করেই চলে সারাটাজীবন। এ সময় মানুষ শিক্ষা নেয় তার পরিবার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সমাজ থেকে। তাই এই সময়ের গুরুত্ব মানব জীবনে সর্বাধিক। এ সময় হেলায় হেলায় নষ্ট করলে পস্তাতে হয় জীবনের বাকিটা সময়।

জীবনে যারা সাফল্য পেয়েছে তারা সবাই সময়ের ব্যাপারে ছিল সচেতন। সময়কে কাজে লাগিয়ে তারা ছিনিয়ে এনেছে সাফল্যের মুকুট। জীবনে সময়ের গুরত্ব বোঝা ছাড়া সফলতা কোন ভাবেই আশা করা যায় না। আর এই প্রতিযোগিতার যুগে সেই এগিয়ে থাকবে যে সময়ের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারবে।

তবে সময় আমাদের “সময়ের” কাছে নিয়ে যায়। আজকের এই মুহুর্ত টাকে যদি আমরা ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারি তাহলে এই সময় টাই আমাদের ভবিষ্যতে ভালো সময়ের কাছে নিয়ে যাবে।

বাস্তবিক জীবনে আমাদের নিজেদের ভালো থাকার অন্যতম একটি মেডিসিন হচ্ছে প্রতিটা মুহূর্ত কে উপভোগ করা, হোক সেটি খারাপ বা ভালো। প্রতিটা সেকেন্ড নিজের মত করে কাটানো, এতে করে সময়ের যথোপযুক্ত ব্যাবহার তো হবেই সাথে নিজের খারাপ সময় টাতেও ভালো ভাবে কাটানো যাবে।

১৭ শতকের স্প্যানিশ লেখক ও দার্শনিক ব্যালটাজার গার্সিয়ানের ভাষায়, “যার হাতে কিছুই নেই, তার হাতেও সময় আছে। এটাই আসলে সবচেয়ে বড় সম্পদ”

2 thoughts on ““সময়””

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top